ওয়েবসাইট কি ও কেন আমাদের প্রয়োজন | ওয়েবসাইট কত প্রকার ও কি কি

ওয়েবসাইট কি বা  কাকে বলে?

ওয়েবসাইট হল ইন্টারনেট জগতে আপনার একটি ব্যবসা, প্রতিষ্ঠান, বা আপনার কোন শখ, বা কোন জরুরী বিষয় সারা বিশ্বের লোকদের মাঝে তুলে ধরার একটি অন্যতম মাধ্যম। সারা বিশ্বের মাঝে আপনার প্রতিষ্ঠান বা আপনার ব্যবসাকে তুলে ধরতে হলে একটি ওয়েবসাইট অবশ্যই জরুরী।

ওয়েবসাইট কত প্রকার ও কি কি?

সাধারণ ভাবে ওয়েবসাইটকে আমরা দুই ভাগে ভাগ করতে পারি। একটি হলো স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট অপরটি ডায়নামিক ওয়েবসাইট। এছাড়াও অবস্থানের ভিত্তিতে লোকাল ও রিমোট এই দুইটি ভাগেও আমরা ওয়েবসাইটকে ভাগ করতে পারি।

ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ডিজিট কম্পিউটার 

ওয়েবসাইটের প্রকারভেদ

গঠন বৈচিত্র‍্য এর ওপর ভিত্তি করে ওয়েবপেইজ বা ওয়েবসাইটকে সাধারণত দুইভাবে ভাগ করা যায়। যথা:

  • স্ট্যাটিক ওয়েবপেইজ বা স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট (Static Webpage or Static Website)
  • ডাইনামিক ওয়েবপেইজ বা ডাইনামিক ওয়েবসাইট (Dynamic Webpage or Dynamic Website)

স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট কি?

যে সকল ওয়েবসাইটের ডেটার মান ওয়েবপেইজ প্রদর্শন করার পর পরিবর্তন করা যায় না তাকে স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট বলে। স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য স্ক্রিপ্টিং ভাষা ব্যবহার করা হয় না। HTML, CSS, JAVASCRIPT দিয়ে সাধারণত একটি স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট তৈরী করা হয়।

স্ট্যাটিক ওয়েবসাইটের বৈশিষ্ট্য

  • খুব দ্রুত লোড হয়।
  • ডেটাবেজ এর সাথে সংযোগ থাকে না।
  • কনটেন্ট নির্দিষ্ট থাকে।
  • ব্যবহারিক তথ্য আপডেট করতে পারবে না।
  • HTML, CSS, JS ইত্যাদি দিয়ে এটি ডিজাইন করা হয়ে থাকে।

স্ট্যাটিক ওয়েবসাইটের সুবিধা

  • নিয়ন্ত্রন সহজ এবং সহজে পরিচালনা করা যায়।
  • খরচ কম এবং সাইট দ্রুত লোড নেয়।
  • নেট স্পিড কম হলেও দ্রুততার সাথে ডেটা ডাউনলোড করা যায়।
  • সহজে ওয়েবপেইজের লে-আউট পরিচালনা করা যায়।

স্ট্যাটিক ওয়েবসাইটের অসুবিধা

  • কনটেন্ট আপডেট করতে প্রচুর সময় লাগে।
  • ওয়েবসাইটের আকার বৃদ্ধির সাথে সাথে কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণ করা ঝামেলা এবং কঠিন হয়ে যায়।
  • ব্যবহারকারীর ইনপুট নেওয়ার কোন ব্যবস্থা থাকে না।
  • নতুন কোন পেইজ যুক্ত করতে হলে সেই পেইজের জন্য আলাদা ভাবে কোডিং করতে হবে।

ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ডিজিট কম্পিউটার 

ডাইনামিক ওয়েবসাইট কি?

যে সকল ওয়েবসাইটের ডেটার মান ওয়েবপেইজের প্রদর্শনের পরেও পরিবর্তন করা যায় তাকে ডায়নামিক ওয়েবসাইট বলে। ডায়নামিক ওয়েবসাইট তৈরীর জন্য স্ক্রিপ্টং ভাষা যেমন – PHP, ASP, Python ব্যবহার করা হয় এবং ওয়েবপেইজটি ডিজাইনের জন্য HTML, CSS, JS ও ব্যবহার করা হয়। এর পাশাপাশি ডেটাবেজেরও (SQL/ MYSQL) প্রয়োজন পড়ে।

ডায়নামিক ওয়েবসাইটের বৈশিষ্ট্য

  • পরিবর্তনশীল তথ্য বা ইন্টারঅ্যাক্টিভ ওয়েবপেইজ তৈরী করা।
  • রানটাইমের সময় পেইজের ডিজাইন বা কনটেন্ট পরিবর্তন হতে পারে।
  • ডেটাবেজ ব্যবহৃত হয়।
  • ব্যবহারিক তথ্য আপডেট করতে পারে।

ডায়নামিক ওয়েবসাইটের সুবিধা

  • অনেক বেশি তথ্য বহুল হতে পারে।
  • তথ্য ও বিষয়বস্তু খুব দ্রুত আপডেট করা যায়।
  • নির্ধারিত ব্যবহারকারীদের জন্য নির্ধারিত পেইজ প্রদর্শন করা যায়।
  • ব্যবহারকারীদের জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ এক্সেস সেট করা যায়।

ডায়নামিক ওয়েবসাইটের অসুবিধা

  • খরচ বেশী।
  • নিয়ন্ত্রণ ও উন্নায়ন করা তুলনামূলক জটিল এবং কঠিন।
  • তথ্য হ্যাক এর সম্ভাবনা থাকে
  • ডেটাবেজ ব্যবহার করার জন্য ডেটা লোড হতে বেশী সময় লাগে।

এছাড়াও আমরা ব্যবহারের ভিত্তিতেও ওয়েবসাইটের শ্রেণিবিভাগ করতে পারি। যেমনঃ

আর্কাইভ সাইটঃ পুরনো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্যাদি সকলের ব্যবহারের জন্য জমা রাখা হয়।
ই-কমার্স সাইটঃ পন্য কেনা-বেচার জন্য তৈরী করা হয়।
নিউজ সাইটঃ এসব সাইটে বিভিন্ন ধরনের খবরা-খবর পাওয়া যায়।
ব্লগ সাইটঃ বিভিন্ন ব্লগ সাইটে বিভিন্ন নিশ ভিত্তিক কনটেন্ট পাওয়া যায়।
ডাউনলোড সাইটঃ বিভিন্ন ধরনের ফাইল, সফটওয়্যার ইত্যাদি ডাউনলোড করা যায়।
পোর্টফোলিও সাইটঃ নিজের সম্পর্কে ভিভিন্ন ইনফরমেশন থাকে। যাতে করে সাইটের ভিজিটর যার পোর্টফোলিও তার সম্পর্কে জানতে পারে।

ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন ডিজিট কম্পিউটার 

সর্বশেষ

সকলকে অসংখ্য ধন্যবাদ পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য ।

যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে নিচে শেয়ার অবশন থেকে আপনার সকল বন্ধুদের সাথে আর্টিকেলটি শেয়ার করবেন।

এবং আর্টিকেল সর্ম্পকে কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই তা নিচে কমেন্ট বক্স এ জানাতে ভুলবেন না।